জেনে নিই হজ্জ ও উমরা এর বিস্তারিত (পর্ব ৪)।

হজ্জ-হাজী-muslimpoint
পর্ব ৪ঃ

✅✅কিছু যোগাযোগের ঠিকানা জেনে রাখুন
=========================

ঢাকা বাংলাদেশ হজ অফিস
ঠিকানা: হজ অফিস, আশকোনা, এয়ারপোর্ট, ঢাকা।
ফোন: ডিরেক্টর (৮৯৫৮৪৬২), সহকারী হজ অফিসার (৭৯১২৩৯১), স্বাস্থ্য (৭৯১২১৩২)
আইটি হেল্প: ৭৯১২১২৫, ০১৯২৯৯৯৪৫৫৫
জেদ্দায় বাংলাদেশি দূতাবাস
যোগাযোগের ঠিকানা: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের কনস্যুলেট জেনারেল
পিও বক্স-৩১০৮৫, জেদ্দাহ ২১৪৯৭, সৌদি আরব।
অবস্থান: ৩ কিলোমিটার, পুরাতন মক্কা রোডের কাছে (মিতশুবিশি কার অফিসের পেছনে) নাজলাহ, পশ্চিম জেদ্দা, সৌদি আরব।
ফোন: ৬৮৭ ৮৪৬৫ (পিএবিএক্স)
জেদ্দায় বাংলাদেশ হজ মিশন
লোকেশন: জেদ্দা ইর্ন্টারনেশনাল এয়ারপোর্ট (বাংলাদেশ প্লাজার নিকটবর্তী)।
ফোন: +৯৬৬-২-৬৮৭৬৯০৮। ফ্যাক্স:০০-৯৬৬-২-৬৮৮১৭৮০।
আইটি হেল্প: +৯৬৬৫৬২৬৬৩৪৬৭।
ই-মেইল: [email protected]
মক্কায় বাংলাদেশ হজ মিশন
লোকেশন: ইবরাহীম খলীল রোড, মিসফালাহ মার্কেট ও গ্রিনল্যান্ড পার্কের সামনে।
ফোন: +৯৬৬-২-৫৪১৩৯৮০,৫৪১৩৯৮১। ফ্যাক্স:০০-৯৬৬-২-৫৪১৩৯৮২
আইটি হেল্প: +৯৬৬৫৬২৬৫৪৬৬৪।
ই-মেইল: [email protected]
মদীনায় বাংলাদেশ হজ মিশন:
লোকেশন: কিং ফাহাদ রোড জংশন ও এয়ারপোর্ট।
ফোন: +৯৬৬-০৪-৮৬৬৭২২০।
আইটি হেল্প: +৯৬৬৫৬২৬৫৪৩৭৬।
ই-মেইল: [email protected]
মিনায় বাংলাদেশ হজ মিশন:
লোকেশন: ২৫/০৬২ সু-কুল আরব রোড ৬২, ৫৬, জাওয়হারাত রোডের সামান্তরালে।

 ✅বহুল ব্যবহৃত কিছু আরবি শিখে নিন
=========================

বাংলা
আরবী
বাংলা
আরবী
আমি
আনা
আপনি কেমন আছেন
কাইফাল হাল
আমি চাই
আবগা
আমাকে দাও
আতিনী
এয়ারপোর্ট
মাত্বার
বাজার
সূক
জলদি
সুরআ
নাই
মা ফি
কত দাম?
কাম ফুলুস
নিন
খুয
টাকা ফেরত দিন
রজ্জা ফুলুস
আলহামদুলিল্লাহ আমি ভালো আছি
খায়ের, আলহামদুলিল্লাহ
কোথায়
ফোয়েন/আইনা
আমি বাংলাদেশী তাবু খুঁজছি
আবগা খিমা বাংলাদেশ
ভাঙতি আছে কি?
ফি সরফ?
আমার মুয়াল্লিম…
মুতাওয়াফী ….
মানি এক্সেঞ্জার
সারাফ/মাসরাফ
আমি পথ হারিয়ে ফেলেছি
আনা ফাগত্তু তারিক
পাসপোর্ট
জাওয়ায
গাড়ি
সাইয়ারাহ
পুলিশ
শুরতা
ড্রাইভার, তুমি কি যাবে?
ইয়া সাওয়াক, হাল আনতা রুহ
ট্রাফিক সিগনাল
ইশারা
বাথরুম/টয়লেট
হাম্মাম
রুটি
খুবজ্
সাদা ভাত
রুজ সবুল
দুধ
হালীব
মাঠা
লাবান
জুস
আসীর
পানি
মুইয়া
রেস্তোরাঁ
মাত‘আম
আপেল
তুফ্ফাহ
মুরগী
লাহাম দিজাজ
১,২,৩,৫
অহেদ, ছানি, ছালাছা, খামছা
আবাসিক হোটেল
ফানদাক
১০, ৩০, ৫০
আশারা, ছালাছিন, খামছীন
কলা
মাউয
১০০,২০০,৩০০
মিয়া, মিয়া

কোথায় যাচ্ছেন? আরো নতুন কিছু জানার জন্য এই লেখাটি পড়ুনঃ   জেনে নিই হজ্জ ও উমরা এর বিস্তারিত(পর্ব ৯)।

,✅হজের প্রকারভেদ হজ প্রধানত তিন প্রকার
=============

১.ইফরাদ হজ
২.কিরান হজ
৩.তামাত্তু হজ
হজউমরাহউমরাহxউমরাহউমরাহহাদী (পশু জবেহ) – ওয়াজিব নয়হাদী (পশু জবেহ) – ওয়াজিবহাদী (পশু জবেহ) – ওয়াজিব

বইয়ে তামাত্তু হজ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে এবং শেষে ক্বিরান ও ইফরাদ নিয়ে আলোচনা করবো।

বদলি হজ: কোনো ব্যক্তি যদি ফরয হজ আদায় করতে অক্ষম হয় তবে কোনো ব্যক্তিকে তার পক্ষ হতে হজ (বদলি হজ) পালন করার জন্য মনোনিত করতে পারেন। এক্ষেত্রে মনোনিত ব্যক্তি ইতোপূর্বে নিজের হজ পালন করেছেন এমন হতে হবে।[1]

আবু রাযিন আল আকিলি থেকে বর্ণিত, তিনি এসে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে প্রশ্ন করে বললেন, আমার পিতা খুব বৃদ্ধ, তিনি হজ ও উমরাহ পালন করতে পারেন না। সাওয়ারির উপর উঠে চলতেও পারেন না। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, তোমার পিতার পক্ষ থেকে হজ ও উমরাহ করো।[2]

তিন প্রকার হজের মধ্যে বদলি হজ কোন প্রকার হবে তা, যে ব্যক্তির পক্ষ থেকে হজ করা হচ্ছে তিনি নির্ধারণ করে দেবেন। বদলি হজ -ইফরাদ হজ হতে হবে, এমন কোনো কথা নেই; বরং উল্লিখিত হাদীসে হজ ও উমরাহ উভয়ের কথাই আছে।

[1] আবু দাউদ, হাদীস নং ১৮১১; মিশকাত, হাদীস নং ২৫২৯

[2] তিরমিযী, হাদীস নং ৮৫২

✅ হজের সময় যেসব জিনিসপত্র সঙ্গে নিবেন
=================

প্রথমে ঠিক করে নিন আপনি কোন প্রকারের হজ করবেন এবং জেনে নিন আপনার প্রথম গন্তব্যস্থল কোথায়। (প্রথমে মক্কা না মদীনায় যাবেন)

আপনার গন্তব্যানুসারে যাত্রার প্রস্তুতি নিন। (ধরে নিচ্ছি আপনি প্রথমে মক্কায় যাবেন)

বেশি মালামাল নিয়ে আপনার বোঝা ভারী করবেন না, আবার কম নিয়ে অপ্রস্তুতও হবেন না।

পাসপোর্ট হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে, সেজন্য আপনার পাসপোর্টের ফটোকপি নোটারি করে নিন এবং বিমানের টিকেট ও মেডিকেল সার্টিফিকেটের ফটোকপি করে নিন। বাসায়ও এর কপি রেখে যান।

কোথায় যাচ্ছেন? আরো নতুন কিছু জানার জন্য এই লেখাটি পড়ুনঃ   আমাদের অজান্তেই আমরা মুনাফিক | মুনাফিক কি এবং মুনাফিকে পরিণত হওয়ার কারণ

অতিরিক্ত ১০ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি ও ১০ কপি স্ট্যাম্প সাইজের রঙ্গিন ছবি সঙ্গে নিন।

মজবুত চাকাওয়ালা মাঝারি বা বড় আকারের ১টি ব্যাগ/লাগেজ সঙ্গে নিবেন।

মুল্যবান জিনিসপত্র (টাকা, টিকেট, পাসপোর্ট ইত্যাদি) রাখার জন্য ১টি কোমর/কাঁধ/সৈনিক ব্যাগ নিন।

সালাতের মুসাল্লা বা কাপড়, কাপড় শুকানো দড়ি ও ব্যাগ বাঁধার জন্য কিছু ছোট দড়ি সঙ্গে রাখুন।

পড়ার জন্য ছোট আকারের কুরআন মাজীদ ও বইপত্র এবং লোকেশন ম্যাপ সঙ্গে রাখুন।

যোগাযোগ এর জন্য সাধারণ মোবাইল অথবা এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন সঙ্গে থাকলে ভালো হয়।

দুই জোড়া করে চশমা ও কোমল স্লিপার সেন্ডেল এবং এগুলো রাখার জন্য ছোট পাতলা কাপড়ের একটি ব্যাগ।

রোদ থেকে বাঁচার জন্য ছোট সাদা বা বিশেষ রঙের ছাতা অথবা ক্যাপ।

পশু যবেহ (হাদী) বা ফিদিয়ার জন্য ৫০০-৬০০ সৌদি রিয়াল আলাদা করে রাখতে ভুলবেন না।

ব্যক্তিগত ব্যবহারের জিনিসপত্র: ব্রাশ, পেস্ট, টয়লেট পেপার, আয়না, চিরুনি, তেল, সাবান, তোয়ালে, শ্যাম্পু, নোটবুক, পারফিউম, ভ্যাসলিন, লোশন ও ডিটারজেন্ট ইত্যাদি সাথে নিন। তবে ইহরাম অবস্থায় ব্যবহার করার জন্য সেসব প্রসাধনী সুগন্ধহীন হতে হবে।

দুইটি ছোট বেডশিট ও একটি ফোলানো বালিশ, হালকা চাদর, পেষ্ট, গ্লাস, চামচ, টর্চ লাইট, বাথরুম সুগন্ধি, মুখোশ, রুমাল ও কাপড় হ্যাঙার প্রয়োজন মনে করলে সাথে নিন।

একটি দেশের পতাকা, এলার্ম ঘড়ি/হাত ঘড়ি, রোদ চশমা, মার্কার পেন।

পর্যাপ্ত ওষুধপত্র, কিছু দরকারি এন্টিবায়োটিক, ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র অনুসারে ভ্রমণের জন্য দরকারি কিছু ওষুধ।

ব্যাগের নিরাপত্তার জন্য সঙ্গে ছোট আকারের তালা-চাবি নিন এবং কিছু পলিথিন ব্যাগও নিন।

দরকারি জিনিসপত্র (টাকা, টিকেট, পাসপোর্ট, হজের পরিচয়পত্র, ক্রেডিট কার্ড) সবসময় হাতের কাছে অথবা নিরাপদ স্থানে রাখবেন।

সঙ্গে কিছু বাংলাদেশী টাকাও রাখবেন।

একটি সাধারণ পরামর্শ হলো : আপনার নাম, পাসপোর্ট নম্বর, হজ পরিচয়পত্র নম্বর, যোগাযোগের মোবাইল অথবা ফোন নম্বর, ট্রাভেল এজেন্টের নাম ও নং, হোটেলের নাম ও ঠিকানা, যে কোনো নিকট আত্মীয়ের নাম ও ঠিকানা ও মুয়াল্লিম নং আপনার সকল ব্যাগে ইংরেজিতে লিখে রাখবেন।

কোথায় যাচ্ছেন? আরো নতুন কিছু জানার জন্য এই লেখাটি পড়ুনঃ   সূরা ইখলাস তিনবার পড়লে সত্যিই কি এক খতম কুরআন তেলোয়াতের সওয়াব হয়? সূরা ইখলাস কুরআনের এক তৃতীয়াংশের সমান হাদিসটির সঠিক ব্যাখ্যা

কিছু শুকনো খাবার যেমন-চিড়া, গুড়, বিস্কুট, বাদাম, ড্রাই কেক, ইত্যাদি সঙ্গে রাখুন।

হজে যাওয়ার সময় আপনার মালামালের একটি তালিকা করুন ও তালিকা চেক করুন।

হজে যাওয়ার সময় আপনার বড় লাগেজের আদর্শ ওজন হবে ৮ থেকে ১০ কেজি।

শেষ কথা হলো; হজে যাওয়ার সময় অবশ্যই সূরা-আল বাকারা-এর ১৯৭ নং আয়াতকে সাথে ব্যাগে নিয়ে নয় বরং অন্তরে করে নিয়ে যাবেন!
[পুরুষদের জন্য]

ইহরামের জন্য দুই সেট সাদা কাপড়।

ইহরামের কাপড় বাধার জন্য কোমর বেল্ট।

মাথা মুড়ানোর জন্য ১/২টি রেজার অথবা ব্লেড। তবে তা কোনোক্রমেই হাতের ব্যাগে রাখবেন না।

উপযুক্ত ও আরামদায়ক: প্যান্ট, শার্ট, ট্রাউজার, লুঙ্গি, টি-শার্ট, আন্ডারওয়্যার, পাঞ্জাবি, স্যান্ডেল, মোজা, জুতা, টুপি ইত্যাদি।

[মহিলাদের জন্য]

পরিষ্কার ও আরামদায়ক সালওয়ার-কামিজ, স্কার্ফ, হিজাব।

পুরো যাত্রার জন্য প্রয়োজনীয় পর্যাপ্ত কাপড়।

লেডিস ন্যাপকিন, সেফটি পিন, কেঁচি, টিস্যু, স্যান্ডেল, মোজা ও জুতা ইত্যাদি।

 ❌❌হজের সময় যেসব পরিহার করবে
=======================

টিনের ট্রাঙ্ক, ভারী স্যুটকেস, ভারী কম্বল ও পানির বালতি ইত্যাদি সাথে নেওয়া ঠিক হবে না।

ক্যাসেট অথবা সিডি সঙ্গে নিবেন না। কারণ, এর জন্য ইমিগ্রেশন চেক করতে পারে।

পচনশীল অথবা গলে যেতে পারে এমন খাবার নিবেন না। যেমন- ফল, চকলেট, দুধ ইত্যাদি।

পুরুষরা সিগারেট, স্বর্ণের আংটি, স্বর্ণের চেইন (সবই হারাম) সঙ্গে নিবেন না।

মহিলারা ভারী অলঙ্কার সঙ্গে নিবেন না।

শরীরে তাবিজ, কবজ ও ফিতা ইত্যাদি বাঁধা থাকলে তা খুলে ফেলে শির্ক মুক্ত হয়ে যান। কারণ শির্ক ইবাদত কবুল হওয়ার অন্তরায়!

সঙ্গে ক্যামেরা, ভিডিও ক্যামেরা সাথে না নেওয়া ভালো। কারণ, এতে আপনার ইবাদতের মনসংযোগ নষ্ট হবে।

নখ কাটার মেশিন, সুই-সুতা, কেঁচি, চাকু ইত্যাদি সব সময় মেইন বড় লাগেজে রাখবেন।

 

MuslimPoint Organization

About MuslimPoint Organization

MuslimPoint একটি অনলাইন ভিত্তিক ইসলামী প্রশ্নোত্তর, গ্রন্থাগার, ব্লগিং, কুরআন, হাদিস, কুইজ এবং বিষয় ভিত্তিক রেফারেন্স প্ল্যাটফর্ম।

View all posts by MuslimPoint Organization →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *