ধর্ম যার যার উৎসব সবার – এই কথাটা নিয়ে হিন্দু , খ্রিস্টান ও ইসলাম ধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি

হিন্দু খ্রিস্টান ইসলাম ধর্ম উৎসব দৃষ্টিভঙ্গি
ধর্ম যার যার উৎসব সবার – এই কথাটা নিয়ে হিন্দু , খ্রিস্টান ও ইসলাম ধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি

 

 
হিন্দুধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি :


শ্রেয়ান্ স্বধর্মো বিগুণঃ পরধর্মাত্ স্বনুষ্ঠিতাত্৷
স্বধর্মে নিধনং শ্রেয়ঃ পরধর্মো ভয়াবহঃ৷৷৩৫
অর্থ: স্বধর্মের অনুষ্ঠান দোষযুক্ত হলেও উত্তমরূপে অনুষ্ঠিত পরধর্ম থেকে উৎকৃষ্ট। স্বধর্ম সাধনে যদি মৃত্যু হয় তাও মঙ্গলজনক কিংবা অন্যের ধর্মের অনুষ্ঠান করা বিপদজনক।( শ্রীমদ্ভগবদ গীতা, ৩:৩৫)
তাহলে প্রমানিত হলো যে , হিন্দুধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী “ধর্ম যার যার উৎসব সবার” এই বক্তব্যটি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও বাতিল এবং এটি কোন ভাবে গ্রহণযোগ্য নয় ।


খ্রিস্টানধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি :


“এই বারো জনকে যীশু এই নির্দেশ দিয়ে পাঠালেন, ‘তোমরা অইহুদীদের (হিন্দু, মুসলিম প্রভৃতিদের) অঞ্চলে বা শমরীয়দের কোন নগরে যেও না,
বরং ইস্রায়েল জাতির হারানো মেষদের কাছে যেও।তাদের কাছে গিয়ে প্রচার কর যে, ‘স্বর্গরাজ্য এসে পড়েছে।’”
“These twelve Jesus sent out with the following instructions: *“Do not go among the Gentiles (non-Jews)* or enter any town of the Samaritans. *Go rather to the lost sheep of Israel.* As you go, proclaim this message: ‘The kingdom of heaven has come near.’”(The NIV Bible, Matthew, 10:5-7)
তাহলে প্রমানিত হলো যে , খ্রিস্টানধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী “ধর্ম যার যার উৎসব সবার” এই বক্তব্যটি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও বাতিল এবং এটি কোন ভাবে গ্রহণযোগ্য নয় ।
এখন তাহলে হিন্দুধর্ম, খ্রিস্টানধর্ম বলতে পারলে ইসলাম কেন বলতে পারবে না ?

ইসলাম ধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি :

مُنِيبِينَ إِلَيْهِ وَٱتَّقُوهُ وَأَقِيمُوا۟ ٱلصَّلَوٰةَ وَلَا تَكُونُوا۟ مِنَ ٱلْمُشْرِكِينَ

“তাঁর অভিমুখী হও, আর তাঁকে ভয় কর, নামায প্রতিষ্ঠা কর, আর মুশরিকদের অন্তর্ভুক্ত হয়ো না।”
(আল-কোরআন, ৩০:৩১)
তাহলে এখান থেকেও প্রমানিত হলো যে , ইসলাম ধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী “ধর্ম যার যার উৎসব সবার” এই বক্তব্যটি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও বাতিল এবং এটি কোন ভাবে গ্রহণযোগ্য নয় ।
لَكُمْ دِينُكُمْ وَلِىَ دِينِ
“তোমাদের দ্বীন (শিরক) তোমাদের জন্য এবং আমার দ্বীন (ইসলাম) আমার জন্য।”
(আল-কোরআন, ১০৯:৬)

কোথায় যাচ্ছেন? আরো নতুন কিছু জানার জন্য এই লেখাটি পড়ুনঃ   ইসলাম ও হিন্দু ধর্মের সাদৃশ্য বা মিল ,ব্যাখ্যা এবং দলিল বা রেফারেন্স সহ বিস্তারিত

وَلَا تَسُبُّوا۟ ٱلَّذِينَ يَدْعُونَ مِن دُونِ ٱللَّهِ فَيَسُبُّوا۟ ٱللَّهَ عَدْوًۢا بِغَيْرِ عِلْمٍۗ كَذَٰلِكَ زَيَّنَّا لِكُلِّ أُمَّةٍ عَمَلَهُمْ ثُمَّ إِلَىٰ رَبِّهِم مَّرْجِعُهُمْ فَيُنَبِّئُهُم بِمَا كَانُوا۟ يَعْمَلُونَ
.
“(ওহে মুমিনগণ!) আল্লাহকে বাদ দিয়ে যাদেরকে তারা ডাকে তোমরা তাদেরকে গালি দিও না, কেননা তারা তাদের অজ্ঞতাপ্রসূত শত্রুতার বশবর্তী হয়ে আল্লাহকে গালি দেবে। আর এভাবেই আমি প্রত্যেক জাতির জন্য তাদের কার্যকলাপকে তাদের দৃষ্টিতে চাকচিক্যময় করে দিয়েছি, অতঃপর তাদের প্রত্যাবর্তন (ঘটবে) তাদের প্রতিপালকের নিকট, তখন তিনি তাদেরকে জানিয়ে দিবেন যা কিছু তারা করতো।”
(আল-কোরআন, ৬:১০৮)


এখন তাহলে আমার প্রশ্ন হলো , যেহুতু হিন্দু , খ্রিস্টান ও ইসলাম ধর্মের দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী “ধর্ম যার যার উৎসব সবার” এই বক্তব্যটি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও বাতিল এবং এটি কোন ভাবে গ্রহণযোগ্য নয় সেহুতু যারা দাবি করে যে “ধর্ম যার যার উৎসব সবার” , তারা কি নিজেদের কে নাস্তিক বা মূর্খ প্রমাণ করতে চায় ?

MuslimPoint Organization

About MuslimPoint Organization

MuslimPoint একটি অনলাইন ভিত্তিক ইসলামী প্রশ্নোত্তর, গ্রন্থাগার, ব্লগিং, কুরআন, হাদিস, কুইজ এবং বিষয় ভিত্তিক রেফারেন্স প্ল্যাটফর্ম।

View all posts by MuslimPoint Organization →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *