আসসালামু আলাইকুম । এখানে রেজিস্ট্রেশন না করেই অংশগ্রহণ/ব্যবহার করতে পারবেন কিন্তু সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন !
+1 vote
68 views
in অন্যান্য ধর্মগ্রন্থ(হিন্দু,খ্রিস্টান...) by
edited by
জেনেসিস ২২:২ এ কি আসলেই ইসহাক (আ) এর কথা বলা হয়েছে?

1 Answer

+1 vote
by (1.9k points)
ইয়াহুদী খ্রিস্টানগণ একমাত্র পুত্র কথাটির ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বলেন, যেহেতু ইসমাইল আ. এর জন্ম দাসীর গর্ভে হয়েছে তাই ঐশ্বরিক আশির্বাদ একমাত্র ন্যায়সঙ্গত সন্তান ইসহাক আ.ই পাবেন। এভাবে একমাত্র পুত্র বলতে নাকি ইসহাক আ.কে বোঝানো হয়েছে। বাইবেলের ওল্ড টেস্টামেন্ট আদিপুস্তক তথা জেনেসিস ২২.২

বাইবেলে আছে, যখন ইসহাক আ. দুধ ছাড়ালেন তখন ইবরাহীম আ. এক ভোজসভার আয়োজন করলেন। সারা সে অনুষ্ঠানে ইসমাইল আ.কে ভেংচি কাটতে দেখে রাগান্বিত হন। এবং ইবরাহীম আ.কে বলেন, এ দাসী ও ছেলেক ঘর থেকে বের করে দাও। ইসমাইল কখনো ইসহাকের উত্তরাধিকারের অংশীদার হবে না। যদিও সারার সিদ্ধান্তটা ইবরাহীম আ.কে ব্যথিত করে। কারণ ইসমাইল আ.ও তার ছেলে। তথাপি আল্লাহ বলেন, ব্যথিত হবে না ইবরাহীম! সারা যাব বলে তা শোনো। কারণ ইসহাকের বংশ দিয়েই তোমার পরিচিতি হবে। আদিপুস্ত-জেনেসিস ২১.৮-১২

এখন আসুন, উপরিক্ত বক্তব্যের কিছু অসঙ্গতি নিয়ে আলোচনা করা যাকঃ

অসঙ্গতি ১

ইহুদীরা শাস্ত্রগত সংজ্ঞা অনুসারে,  ইয়াকুব আ. এর বারো ছেলে তথা বারো গোত্রের একজন না হলে তাকে জন্মগত ইহুদী বলেনা। তাদের বিধাণ অনুসারে, এই ১২ গোত্রের সবাই সমান। বাইবেলের বর্ণনা অনুযায়ী বনী-ইস্রাইলের ১২ টি গোত্রের ৪ টির সুত্রপাত দাসীর ঘরে। এরা হলেন, ডান(Dan), নাফতালি(Naphtali), গাদ(Gad), আশের(Asher)। ডান ও নাফতালি দাসী ও স্ত্রী বিলহাহ এর সন্তান; আর, গাদ ও আশের অপর দাসী ও স্ত্রী জিলফা’র সন্তান (বিস্তারিত জেনেসিস ২৯-৩০)। পরিষ্কার অসামঞ্জস্যতা এখানে দৃশ্যমান। যে অজুহাতে দাসীর ছেলে বলে, ইসমাইল (আঃ) এর সন্তানের অধিকার কেড়ে নেয়া হলো; সেই একই অভিযোগ কিন্তু বনী ইস্রায়েলের ১২ গোত্রের ৪-টির উপর চাপাতে বাইবেল-বিশারদ/ইহুদী/খৃষ্টানরা নারাজ।

অসঙ্গতি ২

ইয়াহুদী খ্রিস্টানদের একমাত্র পুত্র এর ব্যাখ্যা সত্য হিসেবে গ্রহণ করে নেয়া হলে বাইবেলে ইসমাইল আ.কে সন্তান হিসেবে উল্লেখ করার কথা নয়। কিন্তু বাইবেলে ইসহাক আ. এর জন্মের পরও ইসমাইল আ.কে son বা পুত্র হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। জেনেসিস ২৫.৮-৯ এ ইবরাহীম আ. এর মৃত্যু ও সমাহিত করণ বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে বলা হয়েছে, যখন ইবরাহীম (আ.) মারা যান তখন তাঁর সন্তানেরা (sons) তাঁকে মাখফেলাহে সমাহিত করেন। এখানে পরিষ্কারভাবে sons বলা হয়েছে। সুতরাং, এই বক্তব্যের আলোকে ইসমাইল(আ.) ও ইসহাক(আ.) দুজনেই ইবরাহীম(আ.) এর সন্তান/sons।

অসঙ্গতি ৩

জেনেসিস ২২.৮-১৯ এ বলা হয়েছে, ইব্রাহীম(আঃ) যখন শিশু ইসমাইল (আঃ) ও মা হাজেরাকে মক্কায় রেখে যান তখন সেখানে কোনো জনবসতি ছিলোনা। রেখে যাওয়া অল্প খাবার আর পানি শেষ হয়ে গেলে দুধের শিশু ইসমাইল (আঃ) [বর্ণনা অনুসারে তখনো ইসমাইল(আঃ) মায়ের দুধ পান করেন; তাই আশা করা যায় উনার বয়স তখন ২ বছরের মত হবে] কাঁদতে আরম্ভ করেন। বিচলিত মা হাজেরা ৭ বার সাফা-মারওয়া পাহাড়দ্বয়ে দৌড়াদৌড়ি করার পরে যখন শিশু ইসমাইল (আঃ) এর কাছে আসেন, তখন দেখতে পান যে, জিব্রাঈল(আঃ) তাঁর ডানা দিয়ে জমজমের কূপ খুঁড়ছেন ও একটু পরেই পানি বেরিয়ে আসে। জেনেসিস ২১.১৮ নং ভার্স অনুযায়ী আল্লাহ বলছেন পিপাসায় কাতর ইসমাইল (আ.) কে কোলে তুলে নিতে।

পূর্বে বাইবেলের বক্তব্যে বলা হয়েছে যে বাইবেল অনুসারে ইসমাইল(আ.) কে যখন ছোটো ভাই ইসহাক (আ.) এর দুধ ছাড়ার ভোজসভায় সারা ভেংচি কাটতে দেখেন; তখনই সারা আ. ক্ষিপ্ত হয়ে ইসমাইল (আ.) ও হাজেরাকে বাসা থেকে বের করে দিতে বলেন। সহজ হিসেব অনুসারে দুধ ছাড়ার সময় ইসহাক (আ.) এর বয়স ৩ আর ইসমাইল (আঃ) এর বয়স ৩+১৪ = ১৭। তো পিপাসার্ত ১৭ বছরের ইসমাইল (আঃ) কে কিভাবে ২১.১৮ অনুসারে মা হাজেরা কোলে তুলে নিলেন? উল্টো বরং ১৭ বছরের জোয়ান যুবক ইসমাইল (আ.) তাঁর মাকে কোলে তোলার ক্ষমতা রাখার কথা। মূল রহস্য হলো, কোরবানীর ভার্স থেকে ইসমাইল(আ.) এর নাম মুছতে গিয়ে সবকিছু গুলিয়ে ফেলা হয়েছে। হারিয়ে গেছে ঘটনার পরম্পরা। ২ বছরের শিশু ইসমাইল (আ.) হয়ে গেলেন ১৭ বছরের কোলে ওঠা শিশু। এতে করে সৃষ্টি হয়েছে চরম মাত্রার অসংলগ্নতা ও অসামঞ্জস্যতা।

Related questions

...