আসসালামু আলাইকুম । এখানে রেজিস্ট্রেশন না করেই অংশগ্রহণ/ব্যবহার করতে পারবেন কিন্তু সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন !
0 votes
53 views
in আল-কুরআন ও তার বিভিন্ন জ্ঞান-শাস্ত্র by  
recategorized by
ইং শা আল্লাহ বা ইনশাআল্লাহ  কোনটি সঠিক হবে ? বিস্তারিত জানতে চাই।

1 Answer

0 votes
by (1.8k points)  

আমরা প্রায়ই সোশাল মিডিয়ায় কারো সাথে চ্যাটিং করতে গেলে, বা কমেন্ট করতে গেলে! বা নিজেরই কোনো পোষ্টে إِنْ شَاءَ ٱللَّٰهُ কিংবা ইনশাআল্লাহ বা ইং শা আল্লাহ বা ইনশা আল্লাহ অথবা ইংরেজী তে InShaAllah বা In Sha Allah লিখে থাকি। কিন্তু এখন প্রশ্ন হলে আসলে কোনটা সঠিক। আসুন বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

প্রথমে বলে রাখি, ইনশাআল্লাহ বা ইং শা আল্লাহ বা ইনশা আল্লাহ অথবা ইংরেজী তে InShaAllah বা In Sha Allah এর কোনটি ১০০% সঠিক উচ্চারণ নয়। তবে বাংলাতে ইং-শা-আল্লাহ এবং ইংরেজীতে Ing-Shaa-Allah হলো উচ্চারণের দিক থেকে সব থেকে সঠিক (এখানে অক্ষরের পরে "-" ব্যবহার করা হয়েছে টান বোঝাতে )। কিন্তু এটাও ১০০ % সঠিক নয়। কিন্তু বাংলাতে ইং-শা-আল্লাহ এবং ইংরেজীতে Ing-Shaa-Allah বললে কোন সমস্যা হবে না আশা করা যায়। কারণ আগেই বলেছি উচ্চারণের দিক থেকে এটি হলো সব থেকে সঠিক। এখন আসুন বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

আমরা জানি মহাগ্রন্থ আল কোরআন এর ভাষা আরবী। তাই আমাদেরকে আরবী ভাষার বানান, উচ্চারণ সম্পর্কে অত্যন্ত সচেতন হতে হবে। না হয় ভুল বানান লিখে কিংবা ভুল উচ্চারণ করে আসল অর্থই পরিবর্তন করা হয়ে যাবে।
যেমন, আমরা যদি সূরা ইখলাস এর প্রথম আয়াতের কথাই ধরি,
قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ
উচ্চারণঃ
ক্বুল হুওয়াল্লাহু আহাদ।
অর্থঃ
বলুন, আল্লাহ এক।
কিন্তু এখানে যদি আমরা ق (ক্বফ)  হরফকে ك (কা্‌ফ) এর মত করে উচ্চারণ করি! তাহলে এর অর্থ দাঁড়ায়, খাও, আল্লাহ এক (নাউজুবিল্লাহ! আস্তাগফিরুল্লাহ !)
আশা করি বুঝে গিয়েছেন, কেন শুদ্ধ ভাবে আরবী উচ্চারণ করা জরুরী

এখন মূল টপিকে আসি।  কেনো বাংলাতে ইং-শা-আল্লাহ এবং ইংরেজীতে Ing-Shaa-Allah ১০০ % সঠিক ভাবে লেখা সম্ভব নয়।
যদি আপনি ভালো করে খেয়াল করেন তবে দেখবেন যে, إِنْ شَاءَ ٱللَّٰهُ এর মধ্যে নুন সাকিন এর নিয়ম আছে। আপনি ইন্টারনেটে নুন সাকিন এর নিয়ম লিখে সার্চ দিলে বিস্তারিত পেয়ে যাবেন। অথবা আরবি ভালো বোঝে এমন কাউকে জিজ্ঞাসা করলে জানতে পারবেন। আমি শুধুমাত্র এই টপিকের উপর ভিত্তি করে আলোচনা করছি যাতে উত্তরটি অনেক বড় হয়ে না যায়।

ইং-শা-আল্লাহ এর মধ্যে নুন সাকিনের ইখফা নিয়ম প্রযোজ্য হবে।
ك ق  ف  ظ ط  ض ص  ش س  ز  ذ د  ج  ث ت
এই ১৫টি অক্ষর যদি নুন সাকিনের বামে থাকে তাহলে নুন সাকিনের উচ্চারণ অনুস্বর (ং) পড়তে হবে, যেমন    শব্দটি 'আনতা' না পড়ে ‘আং-’ বলে নাকের স্বরে একটু দম ধরে থেকে গুন্না করে ‘তা’ পড়তে হবে অর্থাৎ 'আং-তা'। এটাকেই নুন সাকিনের ইখফা বলা হয়। এখন এটার উচ্চারণ কিন্তু স্পষ্টভাবে "ং" এর মতো হবে না। কিছুটা হালকা হবে। কিন্তু সেটা বাংলা বা ইংরেজিতে লিখে প্রকাশ করা সম্ভব নয়।
এজন্যই বলেছিলাম যে , বাংলাতে ইং-শা-আল্লাহ এবং ইংরেজীতে Ing-Shaa-Allah ১০০ % সঠিক ভাবে লেখা সম্ভব নয়।  
কিন্তু যেহুত আমাদের এগুলো প্রতিনিয়ত বাংলা বা ইংরেজিতে লিখতে হয় সেজন্য বাংলাতে "ইং-শা-আল্লাহ" এবং ইংরেজীতে "Ing-Shaa-Allah" লেখাটা সবচেয়ে বেশি নিরাপদ ও গ্রহণযোগ্য । এটায় কোন সমস্যা হবে না ইং-শা-আল্লাহ ।

'ওয়াল্লাহু আলাম'

Related questions

...